সমুদ্রপথে প্রবেশের সময় মালয়েশিয়ায় ৩৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

নিশা ডেভিড
2022.07.01
কুয়ালালামপুর
Share on WhatsApp
Share on WhatsApp
সমুদ্রপথে প্রবেশের সময় মালয়েশিয়ায় ৩৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার সমুদ্রপথে অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে মালয়েশিয়ার মেলাকা ও নেগ্রি সেম্বিলান অঞ্চলের জলসীমা থেকে আটক ৩৭ বাংলাদেশিকে দেশটির কুয়ালালাপুরের অভিবাসন বিভাগে পাঠানোর জন্য গাড়িতে ওঠানো হচ্ছে। ১ জুলাই ২০২২।
[সৌজন্যে: মালয়েশিয়ার মেরিটাইম এজেন্সি]

বৈধভাবে যখন বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নেওয়ার প্রক্রিয়া চলমান তখনই অবৈধভাবে সমুদ্রপথে দেশটিতে প্রবেশের সময় ৩৭ বাংলাদেশিকে আটকের কথা জানিয়েছে সে দেশের মেরিটাইম এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি (এমএমইএ)।

অভিবাসীদের বহনকারী একটি নৌকা বৃহস্পতিবার রাতে মালয়েশিয়ার মেলাকা ও নেগ্রি সেম্বিলান অঞ্চলের জলসীমায় প্রবেশের সময় ধরা পড়ে।

“রাত ১১টার দিকে আমাদের রাডারে মালয়েশিয়ার জলসীমায় একটি নৌকার সন্দেহজনক গতিবিধি ধরা পড়ে। বিষয়টি দেখামাত্র আমরা সেখানে অভিযান পরিচালনা করে তাঁদের গ্রেপ্তার করি,” এক বিবৃতিতে বলেন এমএমইএ’র মেলাকা ও নেগেরি সেম্বিলান অঞ্চলের পরিচালক ক্যাপ্টেন ইস্কান্দার বিন ইশাক।

নৌকাটিতে চালকসহ চারজন ইন্দোনেশীয় এবং ১৮ থেকে ৪৬ বছর বয়সের ৩৭ জন বাংলাদেশি ছিলেন, যারা কোনো বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেননি বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে এমএমইএ।

আটকের পর তাঁদের মেলাকা এবং নেগেরি সেম্বিলান সামুদ্রিক জেটিতে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য তাদের তদন্ত কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এতে জানানে হয়, আটকদের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে মানব পাচার ও অভিবাসী পাচার বিরোধী আইন ও অভিবাসন আইনের অধীনে মামলা তদন্ত করা হচ্ছে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের কয়েক লাখ মানুষ কাজ করেন। গত বছরের প্রথম দিকে করোনা মহামারি দেখা দেওয়ার পর অন্যান্য দেশের মতো মালয়েশিয়া থেকেও অনেকে দেশে ফিরে আসেন। এরপর থেকে কাজে ফেরার সুযোগ পাচ্ছিলেন না তাঁরা, এখন সেই বাধা অনেকটাই কেটেছে।

প্রায় ৪৪ মাস বন্ধ থাকার পর আবার মালয়েশিয়ায় জনশক্তি পাঠানো শুরু হচ্ছে বলে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ সম্প্রতি ঘোষণা দেন।

পাঁচ বছরে পাঁচ লাখ কর্মী নিয়োগের জন্য ইতোমধ্যে সমঝোতা স্মারক সই করেছে দুই দেশের সরকার। যদিও এজেন্সির সুনির্দিষ্ট সংখ্যা নির্ধারণসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়া নিয়ে এখনও কিছু জটিলতা রয়েছে।

দুই দেশের তথ্য অনুযায়ী, মালয়েশিয়া কৃষি, শিল্প, সেবা, খনি, নির্মাণ ও গৃহস্থালি সেবাসহ বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশি কর্মী নেবে। কর্মী নেওয়ার খরচ নিয়োগকর্তারাই বহন করবেন।

ইতিমধ্যে মালয়েশিয়ায় কর্মী হিসেবে যেতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের বাংলাদেশের জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোতে (বিএমইটি) নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

সপ্তাহখানেক আগে বিএমইটি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, জেলা কর্মসংস্থান অফিস বা অনলাইনে ‘আমি প্রবাসী’ অ্যাপে নিবন্ধন করতে পারবেন মালয়েশিয়ায় কর্মী হিসেবে যেতে ইচ্ছুক ব্যক্তিরা।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।

পুর্ণাঙ্গ আকারে দেখুন