Follow us

ঢাকায় দেশ–বিদেশের সাহিত্যানুরাগীদের ভিড়

প্রাপ্তি রহমান
ঢাকা
2018-11-08
ই-মেইল করুন
মন্তব্য করুন
Share
বাংলা একাডেমিতে ঢাকা লিস্ট ফেস্টের অষ্টম আসরের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। ৮ নভেম্বর ২০১৮।
বাংলা একাডেমিতে ঢাকা লিস্ট ফেস্টের অষ্টম আসরের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। ৮ নভেম্বর ২০১৮।
[নিউজরুম ফটো]

উৎসবপ্রিয় বাঙালির উদ্‌যাপন পর্বের শুরু হলো গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা লিট ফেস্টের মধ্য দিয়ে। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে সকালে কত্থক নাচের তালে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম এই সাহিত্য উৎসবের সূচনা হয়। চলবে আগামী তিনদিন।

দেশ–বিদেশের লেখকরা এসেছেন– তাঁদের সান্নিধ্য পেতে প্রথম দিনেই জড়ো হয়েছেন পাঠক ও সাহিত্যানুরাগীরা।

সরকারের পক্ষ থেকে পৃষ্ঠপোষকতার কথা বলা হলেও, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের শঙ্কার কথা জানান ঢাকা লিট ফেস্টের অন্যতম পরিচালক কাজী আনিস আহমেদ।

“অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, বাংলাদেশে সাম্প্রতিককালে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দিয়ে বাকস্বাধীনতা হরণের একটি চেষ্টা করা হচ্ছে,” বলেন তিনি।

কাজী আনিস আহমেদ আরও বলেন, “বাংলাদেশ সরকারের অকুণ্ঠ সমর্থন আছে সংস্কৃতির প্রতি। ঢাকা লিট ফেস্টে কেউ কথা বলতে বাধার সম্মুখীন হয় না। এটা একটি মুক্ত জায়গা, খোলামেলা আলোচনার জন্য। সে কারণে অষ্টমবারের মতো এই আয়োজন করা গেছে।”

বেলা ১১ টার দিকে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাহিত্যসেবী ছিলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তাঁর বাবার মতোই।

সংস্কৃতিমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় স্বাধীনতার পর আয়োজিত প্রথম সাহিত্যসভার কথা বলেন। নূর বলছিলেন, স্বাধীনতা লাভের অব্যবহিত পরের ওই উৎসবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। তিনি রাজনীতিক, সাহিত্যিকদের মিলনমেলায় কী করবেন এই প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছিলেন আয়োজকদের। পরে অবশ্য এসেছিলেন।

এ সময় মঞ্চে উপস্থিতি ছিলেন পুলিৎজার জয়ী মার্কিন লেখক অ্যাডাম জনসন ও পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেখক মোহাম্মদ হানিফ, খ্যাতনামা পরিচালক ও চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নন্দিতা দাস প্রমুখ।

গেল বছর এই আসরে নোবেল জয়ী সাহিত্যিক ভিএস নাইপল এসেছিলেন, ছিলেন আদোনিস। তাঁরা নেই। তবে এবারও সাহিত্যের এই আসর রীতিমতো তারকাখচিত।

ভারতীয় জনপ্রিয় লেখিকা জয়শ্রী মিশরা, লন্ডন ন্যাশনাল একাডেমি অব রাইটিংয়ের পরিচালক ও কথাসাহিত্যিক রিচার্ড বেয়ার্ড, ভারতীয় লেখিকা হিমাঞ্জলি শংকর, শিশুতোষ লেখিকা মিতালি বোস পারকিন্স, ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল এশিয়ার প্রধান হুগো রেস্টল, মার্কিন সাংবাদিক প্যাট্রিক উইন, লেখক ও সাংবাদিক নিশিদ হাজারি, অস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী টিলডা সুইন্টন, জনপ্রিয় অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা থাকছেন।

সাহিত্য আলোচনার পাশাপাশি থাকছে সমসাময়িক নানা বিষয়ের আলোচনা, নৃত্য-গীত-নাটক ও কবিতা পাঠের আসর। উৎসবের প্রথম দিনেই সাদত হুসাইন মান্টোর জীবনী নির্ভর সিনেমার প্রদর্শনী থাকছে।

এ ছবির পরিচালক ও অভিনেত্রী নন্দিতা দাস অংশ নিচ্ছেন একটি অধিবেশনেও। জনপ্রিয় অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা শোনাবেন তাঁর ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করে ফিরে আসার গল্প।

তিন দিনব্যাপী এবারের উৎসবে অধিবেশন সংখ্যা শতাধিক। অংশ নিচ্ছেন বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৫ টি দেশের দুশোরও বেশি কবি-সাহিত্যিক-শিল্পী-প্রকাশক।

আয়োজকেরা বলছেন, এবার বিষয় বৈচিত্র্য গুরুত্ব পাচ্ছে লিট ফেস্টে। উৎসবের অন্যতম পরিচালক ও লেখক কাজী আনিস আহমেদ সাংবাদিকদের কাছে তা-ই দাবি করলেন।

“এবার উৎসবে আমরা বিষয়বৈচিত্র্য বাড়াতে চেয়েছি। ভবিষ্যতের প্রযুক্তি, ভুয়া সংবাদ, হাস্য বিনোদনে নারীর ভূমিকা’র মতো নতুন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে আসবে,” বলেন তিনি।

ঢাকা লিট ফেস্ট উপলক্ষে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বসেছে বইয়ের মেলা। নানা শ্রেণি পেশা ও বয়সের সাহিত্যানুরাগীরা আসছেন, বই পত্র নাড়ছেন, হেমন্তের হিম হিম বিকেলে কফি খেতে খেতে গল্পগুজব করছেন, কখনো লেখককে প্রশ্ন করছেন, কখনো তুলছেন সেলফি।

মেলায় সাহিত্যিক–প্রকাশক ছাড়াও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক তরুণকে দেখা গেছে গতকাল। তাঁদের জন্য সৃজনশীল লেখার কর্মশালা রয়েছে।

কথা হচ্ছিল যায়েদ ইবনে গিয়াস শামসের সঙ্গে। বন্ধু–বান্ধবদের সঙ্গে করে সদ্য ঊনিশে পা দেওয়া তরুণটি এসেছেন। মিতালি পারকিন্স এর রিকশা গার্ল এর আলোচনা শেষে সোজা ঢুকেছেন ময়ূরাক্ষী থেকে বেরোনো ‘রিকশা কন্যা’ বইটি কিনতে। কেমন লাগছে জানতে চাইলে বললেন, চমৎকার।

“এসেছিলাম উর্দু ভাষার সাহিত্যিক সাদত হোসাইন মান্টোর জীবনী নির্ভর সিনেমা দেখতে। কিন্তু অন্য অধিবেশনগুলোও খুব ভালো। তিন দিনই আসব, চমৎকার আয়োজন,” যায়েদ বলেন।

পুর্ণাঙ্গ আকারে দেখুন