রংপুরে ধর্ম ‘অবমাননাকারী’ হিন্দু যুবক টিটু রায় গ্রেপ্তার

কামরান রেজা চৌধুরী
2017.11.14
ঢাকা
Share on WhatsApp
Share on WhatsApp
রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। ১৪ নভেম্বর ২০১৭।
ফোকাস বাংলা

রংপুরে যে যুবকের ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে হিন্দু বাড়িতে অগ্নি-সংযোগ করা হয় সেই যুবক টিটু রায়কে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বলে বেনারকে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

সোমবার দিবাগত রাতে ওই হিন্দু যুবক টিটুকে পার্শ্ববর্তী নীলফামারী জেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান তিনি।

“রংপুরের ঘটনার মূল অভিযুক্ত টিটু রায়কে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সে সেখানে পালিয়ে ছিল। সে দোষী কি না তা তদন্ত শেষ হওয়ার পর জানা যাবে। দোষী হলে তাকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। আর তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হলে তাকে ছেড়ে দেয়া হবে,” বেনারকে বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

হিন্দু বাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় ইন্ধনদাতা ও প্রকৃত হামলাকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।

এদিকে মঙ্গলবার রংপুরে এক সম্প্রীতি সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এই অগ্নি-সংযোগের উদ্দেশ্য ছিল দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করা।

প্রসঙ্গত, রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার হরকলি ঠাকুরপাড়া এলাকার বাসিন্দা খগেন রায়ের ছেলে টিটু রায় গত ৫ নভেম্বর ইসলাম ধর্মকে ‘অবমাননা’ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করে স্থানীয় কিছু ব্যক্তি।

তারা টিটুকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশকে ২৪ ঘন্টা সময়ও বেঁধে দেন। ওই সময়ের মধ্যে টিটুকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশ ব্যর্থ হলে গত শুক্রবার স্থানীয় লোকেরা টিটুসহ ঠাকুরপাড়ার আটটি বাড়ি পুড়িয়ে দেয়।

সেদিন পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হন। আহত হন সাত পুলিশ সদস্যসহ মোট ২৫ জন।

এই ঘটনার পরে আজ মঙ্গলবার দুপুরে রংপুরের হরিদেপুর ইউনিয়নের হরকলি বহুমুখী ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত এক সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

সমাবেশে মন্ত্রী বলেন, “এ ধরনের হামলা নতুন নয়। কক্সবাজারে রামু, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ও চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় অনুরূপ হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গেও জড়িতদের খুব শিগগির আইনের আওতায় আনা হবে। তবে নিরীহ মানুষদের হয়রানি করা হবে না।”

পরে বেনারের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে পরিকল্পিতভাবে এ সকল আক্রমণ পরিচালনা করা হচ্ছে।”

শুক্রবারের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১২৪ জনকে আটক করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার বেনারকে জানিয়েছেন রংপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলে এলাহী।

তিনি বলেন, “ফেসবুক পোস্ট দেয়ার অভিযোগে টিটুর বিরুদ্ধে তথ্য ও প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করা হয়েছে। টিটু রায়কে এখনো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। তবে সে আমাদের হেফাজতে আছে।”

“সে দোষী কি না এখনো বলতে পারছি না। ওর নম্বর পরীক্ষা করে দেখেছি তার ফোন থেকেই আপত্তিকর ও অবমাননা করা ছবিটি আপলোড করা হয়। এটা সে নিজেও করতে পারে আবার তার পক্ষে অন্য কেউ করে থাকতে পারে,” বলেন ফজলে এলাহী।

তিনি বলেন, টিটু রায়ের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এমডি অর্থাৎ মোহাম্মদ টিটু উল্লেখ আছে। তবে তার ছবি ওপর টিটু রায় উল্লেখ আছে।

পরিকল্পিতভাবেই উত্তেজনা সৃষ্টি করার উদ্দেশ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে অগ্নি-সংযোগ করা হয় বলে মনে করেন এলাহী।

তিনি বলেন, “টিটু রায়ের মা জিতেন বালা পুলিশের কাছে বলেছেন যে তার ছেলে লেখাপড়া জানে না। সে গ্রাম্য কবিরাজী চিকিৎসা করে। তার কোনো দোষ নেই।”

মানববন্ধন

হিন্দু পরিবারের বাড়িতে আগুন ও হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার রংপুর শহরের কাচারি বাজার এলাকায় পূজা উদ্‌যাপন পরিষদ ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সদস্যরা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি রথীশ চন্দ্র ভৌমিক।

এছাড়াও ঠাকুরপাড়া এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে সুশাসনের জন্য নাগরিকের আয়োজনে অন্য একটি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় গতকাল প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।