রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলো থেকে শোক ও শ্রদ্ধা

বেনারনিউজ প্রতিনিধি
2022.09.09
কুয়ালালামপুর, ঢাকা, ম্যানিলা, জাকার্তা, ব্যাংকক ও ওয়াশিংটন ডিসি
Share on WhatsApp
Share on WhatsApp
রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলো থেকে শোক ও শ্রদ্ধা ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ম্যানিলার একটি ভবনে টানানো ইলেকট্রনিক বিলবোর্ড। গত বৃহস্পতিবার ৯৬ বছর বয়সে তিনি মারা যান। ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২।
[জোজো রিনোজা/বেনারনিউজ]

টানা ৭০ বছর রাজত্ব করা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর শুক্রবার এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলোর নেতারা ব্রিটেনের রাজপরিবার এবং এর নতুন রাজার প্রতি তাঁদের সমবেদনা ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

শুক্রবার থেকে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। মালয়েশিয়ার রাজা এবং রানি তাঁদের শোকবার্তায় ২০১৯ সালে বাকিংহাম প্রাসাদে এলিজাবেথের সাথে তাঁদের দেখা করার কথা স্মরণ করেছেন। ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের নেতারাও শোক বার্তা দিয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় শোকের অংশ হিসেবে তিন দিন “সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা, বেসরকারি অফিস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিদেশে বাংলাদেশ মিশনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত” রাখার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।

Queen Elizabeth 2.jpg
ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্মরণে ঢাকায় বাংলাদেশের সংসদ ভবনে অর্ধনমিত জাতীয় পতাকা। ৯ সেপ্টেম্বর ৯। [মুনির উজ জামান/এএফপি]

শোক বার্তায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ বলেছেন, “রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে যুক্তরাজ্য এবং কমনওয়েলথ ও অন্যান্য রাজ্যের জনগণ তাঁর ৭ দশকের সেবা, কর্তব্য ও নিষ্ঠার জন্য সর্বদা স্মরণ ও শ্রদ্ধা করবে।”

আলাদা শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা এবং প্রার্থনা শোকাহত রাজ পরিবারের সদস্য এবং যুক্তরাজ্যের শোকাহত জনগণের সাথে রয়েছে এবং আমরা মহামান্যের বিদেহী আত্মার চিরশান্তি ও পরিত্রাণের জন্য প্রার্থনা করছি।”

Queen Elizabeth 3.jpg
ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি জাকার্তায় ব্রিটিশ দূতাবাসে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য শোক বইতে স্বাক্ষর করছেন। ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২। [রেতনো মারসুদি টুইটার]

মালয়েশিয়ার রাজা আল-সুলতান আবদুল্লাহ এবং রানি তুঙ্কু আজিজাহ এক বিবৃতিতে বলেছেন, “একটি গর্বিত সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে আমাদের সরকার এবং জনগণ কমনওয়েলথের প্রতি অবিচল প্রতিশ্রুতির জন্য মহারানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে স্মরণ করবে। একই সাথে স্মরণ করবে যুক্তরাজ্য ও মালয়েশিয়ার মধ্যে নিবিড় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক উন্নয়নে তাঁর প্রচেষ্টার কথা।"

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকোব বলেছেন, রানি এলিজাবেথ তাঁর জনগণের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, “মালয়েশিয়ার সমগ্র জনগণের পক্ষ থেকে আমি রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে যুক্তরাজ্যের রাজপরিবার, সরকার এবং জনগণের প্রতি আমার শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করছি।”

প্রয়াত রানির প্রশংসায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহ বলেছেন, “মহামহিম ছিলেন একজন বিশাল ব্যক্তিত্ব। যুক্তরাজ্য এবং কমনওয়েলথের জনগণের প্রতি তাঁর জীবন ছিল উৎসর্গকৃত ছিল।”

বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড কমনওয়েলথভুক্ত বিশ্বের ৫৬টি স্বাধীন দেশের অন্তর্ভুক্ত।

Queen Elizabeth 4.jpg
থাইল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী প্রাওয়িত ওংসুওয়ান (বাম থেকে দ্বিতীয়) ব্যাংককের ব্রিটিশ দূতাবাসে শোক বইতে স্বাক্ষরের জন্য গিয়ে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতিকৃতি দেখছেন। ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২। [থাই সরকারের প্রচারপত্র/এএফপি]

ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া এবং থাইল্যান্ডের বিবৃতি

ফিলিপাইনের রাষ্ট্রপতি ফার্দিনান্দ মার্কোস জুনিয়র বলেছেন সাত দশক ধরে নেতৃত্ব দেওয়া এলিজাবেথ “বিশ্বের কাছে একজন সত্যিকারের রানির মহান মর্যাদার উদাহরণ।”

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “আমরা এবং ইংল্যান্ডে বসবাসকারী ফিলিপাইনের বহু মানুষ, রানির প্রজা না হওয়া সত্ত্বে তাঁর মধ্যে একজন একজন রানির, একজন মায়ের এবং একজন দাদীর স্নেহের অনুভব লাভ করেছি।”

ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি জোকো উইদোদো ব্রিটিশ রাজ পরিবারের প্রতি “গভীর সহমর্মিতা” প্রকাশ করেছেন।

থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে রানি এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা এবং দুই দেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা জানিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, “আমরা ব্রিটিশ জনগণ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে এই বিশাল ও অপূরণীয় ক্ষতিতে শোক প্রকাশ করছি।”

সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং বলেছেন, কমনওয়েলথের প্রধান রানি এলিজাবেথের জন্য সোমবারের অধিবেশনের শুরুতে সংসদ এক মিনিট নীরবতা পালন করবে।

তিনি এক বিবৃতিতে বলেছেন, “শ্রদ্ধার নিদর্শন হিসেবে তাঁর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার দিন সমস্ত সরকারি ভবনে রাষ্ট্রীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে।”

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি অ্যালবানিজ কমনওয়েলথের প্রতি অবদানের জন্য রানি এলিজাবেথের প্রশংসা করে বলেছেন, “তাঁর বিশ্বস্ত সেবাময় জীবনের কথা আগামী শত শত বছর স্মরণ করা হবে।”

এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, “অস্ট্রেলিয়ার জনগণের হৃদয় আজ যুক্তরাজ্যের শোকাহত জনগণের সাথে একীভূত।”

এ সময় মহারানির নিজের কথাতেই আমরা সান্ত্বনা খুঁজে পাই। তিনে বলে গেছেন ‘দুঃখ হলো সেই মূল্য যা আমরা ভালবাসার জন্য দিয়ে থাকি’।”

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন এবং নিউজিল্যান্ডের গভর্নর-জেনারেল সিন্ডি কিরো আলাদা শোক বিবৃতি জারি করেছেন।

আরডার্ন এক বিবৃতিতে বলেছেন, “এই বিশাল ক্ষতির সময়ে আমি সরকার ও সমস্ত নিউজিল্যান্ডবাসীর পক্ষ থেকে রাজা তৃতীয় চার্লস এবং রাজপরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।”

Queen Elizabeth 5.jpg
থাইল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী প্রাওয়িত ওংসুওয়ান (বাম থেকে দ্বিতীয়) ব্যাংককের ব্রিটিশ দূতাবাসে শোক বইতে স্বাক্ষরের জন্য গিয়ে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতিকৃতি দেখছেন। ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২। [থাই সরকারের প্রচারপত্র/এএফপি]

প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক নিযুক্ত গভর্নর-জেনারেল কিরো ব্রিটিশ রাজার প্রতিনিধিত্ব করেন।

আমি সমস্ত নিউজিল্যান্ডবাসীর পক্ষে নতুন রাজাকে সমবেদনা জানিয়েছি,” কিরো তাঁর বিবৃতিতে বলেছেন।

"৭০ বছর যাবত নিউজিল্যান্ডের রানি হিসেবে তিনি মহিমান্বিত। এক বিশাল পরিবর্তনের এই পুরো সময়কালে তাঁর স্থায়ী উপস্থিতি ছিল। কমনওয়েলথের ঐক্য অটুট রাখতে রানি হিসেবে সকল রাজ্যের প্রতি তাঁর উৎসর্গীকৃত ভূমিকার জন্য তিনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন,” বলেছেন কিরো।

নিউজিল্যান্ড একজন কাঙ্ক্ষিত রানি এবং সম্মানিত নেতাকে হারানোর জন্য গভীর শোক প্রকাশ করছে। মহামান্য রানি নিউজিল্যান্ডে অনেক প্রিয় এবং সম্মানিত ছিলেন। তিনি তাঁর জীবনভর নিবেদিত সেবার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

* প্রতিবেদনে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন ঢাকা থেকে আহম্মদ ফয়েজ, ব্যাংকক থেকে উইলাওয়ান ওয়াচরাসাকওয়েট এবং কুয়ালালামপুর থেকে টেংকু নূর শামসিয়াহ টেংকু আবদুল্লাহ।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।